সুস্বাস্থ্য.কম

সুস্থ্য দেহ ও সতেজ মনের জন্য...

  • Increase font size
  • Default font size
  • Decrease font size

শিশুদের বয়সভিত্তিক বৃদ্ধি

E-mail Print

শিশুর বাহ্যিক বৃদ্ধি দেখে অনেক সময়ই আমরা বুঝতে পারি শিশুটির মানসিক ও মস্তিস্কের বৃদ্ধি ঠিক মতো হচ্ছে কিনা। ভিন্ন ভিন্ন সময়ে শিশুর ভিন্ন ভিন্ন অংগ পূর্ণ বৃদ্ধি লাভ করতে পারে। এর একদম নির্দিষ্ট সময় কাল না থাকলেও একটা সীমারেখা আছে। নীচে তার কিছু উল্লেখ করা হলো।

তিন মাসঃ

শিশুকে এই সময় পিঠে বালিশ দিয়ে বসিয়ে দিলে সে সোজা হয়ে বসে থাকতে পারে, মাথা বা ঘাড় কাত হয়ে পরে যায়না। নিজের হাত নাড়িয়ে তা সে লক্ষ্য করে, চোখ ঘুরিয়ে সব কিছু লক্ষ্য করতে চায়, শব্দ শুনলে মাথা ঘুরিয়ে তাকাতে চায়। এ সময় সে তার মাকে ভালোভাবেই চিনতে পারে।

ছয় মাসঃ

এই সময় শিশু হাত দিয়ে তার খাবার বোতলটি ধরতে পারে, নিজে নিজেই উপুড় বা চিত হয় এমনকি হামাগুড়ি দেয়া শিখে ফেলে, বসিয়ে দিলে কোনো কিছুর সাহায্য ছাড়াই বসে থাকতে পারে এমনকি খেলনা একহাত থেকে অন্য হাতে নিতে পারে। এই সময় শিশু তার নিজের নাম ধরে ডাকলে বুঝতে পারে এবং তাকায়, কেউ কথা বললে সেদিকেও সে তাকাতে পারে, মাথা ঘুরিয়ে সব কিছু সে দেখতে চায়। মুখ ও ঠোট দিয়ে অস্পস্ট শব্দ করতে শেখে।

এক বছরঃ

৯ মাস বয়সেই শিশু কোনো শক্ত একটা কিছু ধরে দাঁড়িয়ে যেতে চায় এবং কখনো কখনো পারেও। ১ বছর বয়সে সে নিজেই শোয়া অবস্থা থেকে উঠে বসে এবং শক্ত কিছু ধরে নিজ়ে নিজেই হাটা শুরু করে দেয়। নিজে নিজে একা একা খেলা, কোনো কিছু প্রয়োজন হলে ইশারায় তা দেখিয়ে দেয়া এসবও সে তখন ভালোই পারে। শিশুকে এই সময় কোনো নির্দেশ দিলে সে টুকটাক বুঝতে পারে এবং তা মানতে চেষ্টা করে। এই সময় সে বেশ কিছু পরিচিত অর্থবোধক শব্দ বলতে শেখে।

দেড় বছরঃ

শিশু এই সময় হাটতে হাটতে সিড়ি বেয়ে উঠতে পারে এমনকি উলটো দিকেও হাটতে পারে। হাটার সময় হাতে একটা খেলনা ধরে রাখাটাও তার অভ্যাসে এসে যায়। নিজে নিজে কাপে করে দুধ খাওয়া, টয়লেটের প্রয়োজন হলে দেখিয়ে দেয়া কিংবা শরীরের ৩/৪ টা অঙ্গ চিনে তা বলা এসব সে ভালোই পারে এতোদিনে। ছবির বই এনে দিলে তা দেখে বেশ মজাও করতে শেখে। পরিচিত শব্দগুলো মিলিয়ে এক আধটা পুর্ন বাক্য বলে আত্মীয়স্বজনদের আনন্দের খোরাক হতে তার বেশ ভালোই লাগে এ সময়।

দুই বছরঃ

এই সময় শিশুটি চায় সবাই তার প্রতি মনোযোগী হোক, মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকাটাই তার যত বাসনা। বেশ দক্ষতার সাথে দৌড়াতে শেখে সে এসময়, পথের দু একটা বাধা ডিঙ্গিয়ে চলাতেও পারদর্শী হয়ে উঠে। দরজার হাতল ঘুরিয়ে খুলে ফেলা, নিজে নিজে জামা কাপড় পরে ফেলা কিংবা নাম ধরে ৪/৫ টা খেলনা চেয়ে বসতে পারে। দেখিয়ে দিলে কাগজে আকতে পারে লম্বা দাগ। এই সময় প্রায় গোটা পঞ্চাশেক অর্থবোধক শব্দ তার শব্দ ভান্ডারে জমা হয় এবং তা দিয়ে সে কথা বার্তা ভালোই চালিয়ে যেতে পারে।

 

সুস্বাস্থ্য সুপারিশ করুন

এই সাইটের সকল তথ্য শুধুমাত্র চিকিৎসা সংক্রান্ত জ্ঞানার্জন ও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রকাশিত যা কোন অবস্থাতেই চিকিৎসকের বিকল্প নয়রোগ নির্নয় ও তার চিকিৎসার জন্য সংশ্লিস্ট চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া বাঞ্ছনীয়